জরুরি বিভাগে দায়িত্ব পালনকালে চিকিৎসক জানলেন তিনি করোনায় আক্রান্ত

131

আকাশ জাতীয় ডেস্ক:

রাজধানীর সাভারে একজন চিকিৎসক করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন। সাভার উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের জরুরি বিভাগে রোগীর সেবা দিতে দিতেই ওই চিকিৎসক জানতে পারেন তার করোনাভাইরাস শনাক্ত হয়েছে। এ বিষয়ে সাভার উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. মো. সায়েমুল হুদা সোমবার দিবাগত রাত ১টার দিকে একটি স্ট্যাটাস দিয়েছেন।

স্ট্যাটাসটি হুবহু তুলে ধরা হল:

যেমনটি নিজের অজান্তেই মনে হয়েছিল, কিছু হলে সাভারে প্রথমেই প্রথম সারির যোদ্ধাদেরই হবে। তাই হয়েছে। আমরা আজ যারা চিকিৎসকসহ ১০ জনের নমুনা পাঠিয়েছিলাম তার মধ্যে ৯ জন নেগেটিভ আর ১ জন চিকিৎসক পজেটিভ।

মোট সাভারে ৪১ জনের নমুনা পাঠানো হয়েছিল তার মধ্যে ৪০ জন নেগেটিভ। কি ভাগ্য আমাদের! আমি আমার যোদ্ধাদের মনোবল দেখে বিস্মিত। তাকে বললাম আপনাকে তো কুর্মিটোলা হাসপাতালে ভর্তি হতে হবে। তিনি তখনও জরুরি বিভাগে দায়িত্ব পালন করছিলেন। তিনি বললেন, স্যার, আমি এখন চলে গেলে ইমারজেন্সি ডিউটি কে করবে, কি হবে রোগী যদি আসে?

চুপ হয়ে গেলাম… ইচ্ছে করছিল অনেক আওয়াজ করে ছোট শিশুদের মত কান্না করতে কিন্ত পারিনি। কিছুক্ষণ চুপ থেকে বললাম, ”আমি করব ইমারজেন্সি ডিউটি। আপনি চিন্তা করবেন না, আমার সিভিল সার্জন স্যার সাহস দিলেন। আমার যোদ্ধা এখন ভর্তি আছে।”

আমাকে বলে স্যার আপনি আইসোলেশনে চলে যান, কারণ আজ সারাক্ষণ আমরা একসাথে ছিলাম। একসাথে প্রশিক্ষণ প্রদান করেছিলাম। আজ আমি চলে আসলাম আইসোলেশনে। আমিসহ আমার ৪০ জন কর্মকর্তা ও কর্মচারীর আইসোলেশন বাধ্যতামূলক হয়ে পড়েছে। বলেছি সহকর্মীদের, যদি বাঁচতে হয় একসাথে লড়ে বীরের মত বাঁচব। আর মরতে হলেও বীরের মত মরব।

এত মানুষ আমাদের ভালবাসে, নিশ্চয়ই মহান সৃষ্টিকর্তা আমাদের দেখে রাখবেন। আমাদের সেবা কার্যক্রম যথারীতি চলবে।
বাসায় থাকুন,ভাল থাকুন।

যদি আমি ও আমার টিম বেঁচে থাকে, দেখা হবে নিশ্চয়ই।

[প্রসঙ্গত, সাভার উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের ওই চিকিৎসকের করোনা আক্রান্ত হওয়ার বিষয়টি মঙ্গলবার নিশ্চিত করেছেন উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. মো. সায়েমুল হুদা।]